কৃষক বন্ধু প্রকল্পে ১.৫ কোটি কৃষক পাচ্ছেন ১০,০০০ টাকার আর্থিক সহায়তা

Whatsapp-Group-Link
krishak bandhu Join Whatsapp channel

ভারতবর্ষ একটি কৃষিপ্রধান দেশ এবং এই দেশের কৃষকদের উন্নতির জন্য বিভিন্ন সময়ে কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকার থেকে নানান রকমের প্রকল্প আনা হয়। এই ধারাবাহিকতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কৃষক বন্ধু প্রকল্পটি একটি উল্লেখযোগ্য উদ্যোগ।

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্পে নতুন ঘোষণা করেছেন যা রাজ্যের কৃষকদের জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ।

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের কৃষকদের জন্য বছরে দুই বার, রবি ও খরিফ মরশুমে, ৪,০০০ থেকে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত অর্থ প্রদান করা হয়। এই বর্ষায়ও সেই অনুযায়ী টাকা প্রদান করা হবে।

কত কোটি কৃষক এই সুবিধা পাবেন

রাজ্যের ১.৫ কোটি কৃষক এই সুবিধা পাবেন এবং এর জন্য সরকার ২,৯০০ কোটি টাকার ফান্ড বরাদ্দ করেছেন। ইতিমধ্যে অনেক কৃষক এই প্রকল্পের অধীনে টাকা পেয়েছেন এবং বাকিদের অ্যাকাউন্টেও শীঘ্রই টাকা জমা হবে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে জানিয়েছেন, “২০১৯ সালের পর থেকে আজ পর্যন্ত কৃষক বন্ধু প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের কৃষকদের মোট ১৮,২৩৫ কোটি টাকা প্রদান করা হয়েছে।

এছাড়া ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে কোনো কৃষক মারা গেলে তাদের পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ বাবদ ২০১৯ সাল থেকে মোট ১,১২,০০০ কৃষক পরিবারকে ২,২৪০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে।”

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য এবং স্টেটাস কিভাবে জানবেন

কৃষক বন্ধু প্রকল্পের সুবিধা নিতে হলে নিকটবর্তী CSC সেন্টারে গিয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে হবে। এছাড়া রাজ্যের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে হোম পেজ খুলে Beneficiary Status অপশনে ক্লিক করতে হবে।

সেখানে আধার নম্বর, মোবাইল নম্বর, ভোটার কার্ড নম্বর এবং ব্যাংকের তথ্য প্রদান করলে অনলাইন স্ট্যাটাস দেখা যাবে। Payment Successful দেখালে বুঝতে হবে যে, একাউন্টে টাকা জমা হয়েছে।

যদি আপনি এখনো এই টাকা না পেয়ে থাকেন তাহলে অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের যাবতীয় তথ্য দিয়ে নাম নথিভুক্ত করতে পারেন। এটি নিশ্চিত করবে যে, আপনি ভবিষ্যতে এই প্রকল্পের সুবিধা নিতে পারবেন।

এই প্রকল্পটি পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে এবং তাদের চাষের ক্ষেত্রে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। কৃষকদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে মমতা সরকারের এই উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয় এবং এর মাধ্যমে অনেক কৃষক পরিবার উপকৃত হচ্ছেন।

Leave a Comment